২২শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

শিরোনাম

ফ্রান্সে রাসূলুল্লাহ(সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনে, রাজু ভাস্কর্যে হচ্ছে প্রতিবাদ

আপডেট: অক্টোবর ২৫, ২০২০

ফ্রান্সে প্রকাশ্যে বিশ্বনবী রাসূলুল্লাহ (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যারয়ের রাজু ভাস্কর্যে হচ্ছে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন ।

সাধারন শিক্ষার্থীবৃন্দের ব্যনারে আজ ২৫-১০-২০২০ (রবিবার) বিকেল ৪ টায় এ আয়োজন করা হয় । আয়োজকদের মধ্যে দু-একজন সাধারন শিক্ষর্থীদের সাথে কথা বললে তারা ‍Amaderdesh24.com কে জানান কোনো দল মত নয় , সকল ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে ফ্রান্সের সরকারের বাক-স্বাধীনতা দেয়ার নামে, ইসলাম অবমাননার বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া উচিত ।

তারা মনে করেন বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এবং মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ হিসেবে রাষ্ট্রীয়ভাবে এর প্রতিবাদ জানানো উচিত।

 

একই ঘটনায় জনপ্রিয় বক্তা মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী গতকাল রাতে এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেন- “হৃদয়ের সবটুকু ঘৃণা ও ক্ষোভ একত্রিত করে ধিক্কার জানাই এসব নরাধমদের— যারা ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের প্রতি অসহনশীলতা প্রদর্শনকে ও অন্যের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়াকে “ফ্রিডম অফ স্পিচ” বলে আখ্যায়িত করছে। পৃথিবীর কোন ভদ্র ও সুস্থ বিবেকসম্পন্ন মানুষ এহেন কাজকে সমর্থন করতে পারে না। আসলেই, এমানুয়েল ম্যাক্রন এর মানসিক চিকিৎসা প্রয়োজন।”

একে পার্টির এক সম্মেলনে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান বলেন, ‘ম্যাখোঁ নামের এই লোকটির ইসলাম ও মুসলমানদের নিয়ে সমস্যা কী? মানসিক পর্যায়ে ম্যাঁক্রনের চিকিৎসা দরকার। তিনি বলেন, ‘যা বলা যেতে পারে তা হলো একজন রাষ্ট্রপ্রধান বিশ্বাসের স্বাধীনতা বুঝতে পারছেন না আর তিনি তার দেশে ভিন্ন বিশ্বাস নিয়ে বসবাস করা লাখ লাখ মানুষের সঙ্গে সেই ভাবে আচরণ করছেন।’

তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ানের অপমানজনক মন্তব্যের পর তুরষ্কের রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে ফ্রান্স। মুসলমান ও ইসলাম ধর্মের প্রতি মনোভাবের জন্য ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর মানসিক চিকিৎসা দরকার, এরদোয়ানের এই কথার জবাবে এমন ঘোষণা দিয়েছে ফ্রান্স। শনিবার তুরস্কের কায়সারি শহরে নিজ দল একে পার্টির এক প্রাদেশিক সমাবেশে ফরাসি প্রেসিডেন্টকে উদ্দেশ্য করে একথা বলেন এরদোয়ান।

 

অন্যদিকে ফ্রান্সের পণ্য বয়কটের ডাক দিয়ে হ্যাশ ট্যাগ (#BoycottFrenceProducts) ব্যবহার করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা। তাদের এ আন্দোলনে ব্যাপক সাড়া মিলেছে বিশ্বব্যাপী।এ আন্দোলনে জেগে উঠেছে বাংলাদেশ। বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ সোচ্চার হয়েছেন এ আন্দোলনে।